কিডনির ক্ষতি হয় যেসব অভ্যাসে

0
64

কিডনি শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। প্রতিদিন সারা বিশ্বে লাখ লাখ মানুষ কিডনি সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান।দৈনন্দিন জীবনে কিছু কিছু অভ্যাসের কারণে কিডনি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যেমন-

১. অ্যালকোহল পান কিডনির জন্য সবচেয়ে বেশি ক্ষতিকর। অতিরিক্ত অ্যালকোহল পান করলে কিডনির কার্যক্ষমতা ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যায়। এটা লিভার সিরোসিসের মতো মারাত্মক রোগের জন্যও দায়ী। এ কারণে সুস্থ থাকতে অতিরিক্ত অ্যালকোহল পান থেকে দূরে থাকুন।

২. কিডনির সুরক্ষার জন্য পানি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু অনেকেই পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করেন না। এতে কিডনির ওপর চাপ পড়ে। এটি তখন ঠিক মতো কাজ করতে পারে না। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের দিনে ৬ থেকে ৮ গ্লাস পানি পান করা জরুরি।

৩. অনেকের বাড়তি লবণ খাওয়ার অভ্যাস আছে। খেতে বসে প্লেটে আলাদা করে লবণ নিয়ে খান অনেকেই। এটি কিডনির মারাত্মক ক্ষতি করে। কিডনি এই অতিরিক্ত সোডিয়াম  দেহ থেকে নিষ্কাশন করতে পারে না। ফলে বাড়তি  সোডিয়ামটুকু রয়ে যায় কিডনিতেই। তখন কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

৪. অনেকে সামান্য ব্যথা পেলেই ব্যথানাশক ওষুধ খান। এটি কিডনির জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর । অতিরিক্ত মাত্রায় এই ধরণের ব্যথানাশক ওষুধ সেবনের কারণে কিডনির কোষগুলো মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ কারণে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ঘন ঘন ব্যথানাশক ওষুধ খাওয়া ঠিক নয়।

৫. অনেকের মাংসের প্রতি আসক্তি রয়েছে। শাকসবজি ও মাছ বাদ দিয়ে শুধু মাংস খেতেই পছন্দ করেন। এ ধরনের অভ্যাস কিডনির জন্য ক্ষতিকর। কারণ কিডনির সুরক্ষার জন্য মাছ ও শাকসবজি অনেক বেশি জরুরি। অতিরিক্ত মাংস খাওয়া কিডনির কার্যক্ষমতা কমিয়ে দেয়।

৬. অনেকে বাড়ির বাইরে বের হলে প্রস্রাব আটকে রাখেন। দীর্ঘক্ষন মূত্রাশয় পূর্ণ করে রাখলে শরীরে নানাবিধ সমস্যা দেখা দেয়। এ ধরনের অভ্যাস কিডনির মারাত্মক ক্ষতি করে। সূত্র : নিউজ এইট্টিন

কিডনির সমস্যা হলো প্রথমে খাদ্যাভাস পরিবর্তন করতে হয়, প্রোটিন যুক্ত খাবার পরিহার করতে হয়, লবণ খাওয়া কমিয়ে দিতে হয় সাথে যেসব খাবারে পটাশিয়াম বেশি আছে তা খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিতে হয়। কিডনির সমস্যা হলে খাদ্য ছাড়াও নিয়মিত আকুপ্রেসার করলে কিডনির জন্য অনেক উপকার হয়। যা আধুনিক চিকিৎসায় বিরল।

আলমগীর আলম (কল করতে পারেন ০১৬১১০১০০১১)

LEAVE A REPLY