কোমড় ব্যথার জটিল সমস্যায় প্রাকৃতিক সমাধান !!

0
13314

আব্দুল হালিম বয়স ২৯/৩০,  পেশা ইলেক্ট্রেশিয়ান, গাজিপুরের বাসিন্দা, দুসন্তানে জনক। নিজের কাজ করার সময় হঠাৎ একদিন কোমড়ে টান লাগে, ব্যথা তীব্র হতে থাকে,  রাতে ব্যথার ঔষধ খেয়ে ঘুমিয়ে পরেন, সকালে ঘুম থেকে উঠে আর সাবলিল ভাবে বসতে পারে না, কোমড় ব্যথায় শরীর নড়াচড়া করতে পারছেন না।

তাকে ধরাধরি করে ডাক্তারের কাছে নেওয়া হলে, ডাক্তার তাকে কোমরের ব্যথা ঔষধ দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়, পরের দিন তার কোমড়ের ব্যথা আরও বাড়তে থাকে কোন কিছুতেই ব্যথা কমছে না, উপরন্ত সে হাটা চলার করতে পারছে না এমন কি বসতেও পারছে না।

Halimএমন অবস্থায় উত্তরার একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি হন, নানান পরিক্ষা নিরিক্ষার পর তার চিকিৎসা শুরু করে, নানান ঔষধেও তার ব্যথা কমানো সম্ভব হয় না, ঔষধ খেলে কিছুক্ষণ ব্যথা কমা থাকে আবার ঘন্টা 3 পরেই আবার ব্যথা ফিরে আসে। ৫ দিনেও কোন ধরণের শারীরিক উন্নতি না হলে ডাক্তারগণ আরো কিছু পরিক্ষা নিরিক্ষা করতে দেন, আবার নতুন ধরণের ঔষধ দিয়ে চিকিৎসা চালাতে থাকে কিন্তু ৭ দিন চিকিৎসায় তার কোন শরীরিক উন্নতি হয় না, ডাক্তাররা নিশ্চিত হন যে, তার  কোমড়ের L4-L5 সমস্যা। তখন আব্দুল হালিমের কোমড়ের ব্যথা না সাড়লে চিকিৎসকগণ তাকে অপারেশনের পরামর্শ দেয়। আব্দুল হালিমের পরিবার ও সে অপারেশনের কথা জেনে সে হতাশ হয়ে পরে।

আব্দুল হালিম হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে যায়, অপারেশনের জন্য মানসিক প্রস্তুতি নিতে থাকেন, এমন সময় সে ন্যাচারোপ্যথী সেন্টারের খোঁজ পান এবং সে প্রাকৃতিক চিকিৎসায় সুস্থ্যতার আশা নিয়ে ন্যাচারোপ্যথি সেন্টারের 6 দিনের প্যাকেজের আওতায় ভর্তি হন, খাদ্য বিশেষজ্ঞ শহীদ আহমেদ ও আকুপ্রেসার বিশেষজ্ঞ আলমগীর আলমের তত্তাবধনে ৬ দিন চিকিৎসা শুরু হয়। ডিটক্সিফিকেশন ও আকুপ্রেসারর মাধ্যমে তার কোমড়ের ব্যথা কমতে থাকে এবং সে ধীরে ধীরে হাটতে শুরু করে।

আব্দুল হালিম ন্যাচারোপ্যথি সেন্টারে এসেছিল মানুষের উপর ভর করে, ছদিন পর সে সুস্থ হয়ে নিজ পায়ে হেটে হাসিমুখে বাড়ি ফিরে যায় । যারা আব্দুল হালিমের সাথে কথা বলতে চান, তার মোবাইল নাম্বার -01676541646

আব্দুল হালিম প্রাকৃতিক চিকিৎসা পথ্য-খাদ্য ও আকুপ্রেসার দিয়ে সম্পূর্ণ নিরাময় হয়ে তার কাজে যোগ দিয়েছেন, নিয়মিত পরিচর্যায় এবং নিয়মুনবর্তিতায় সে এখন সুস্থ্।  তার এখন কোন ধরণের কোমড়ে ব্যথা অনুভব করেন না এবং কোমড়ের কোন ধরণের জড়তা নাই তার চলতে ফিরতে, দৈনন্দিন কাজ করতে কোন ধরণের অসুবিধা হয় না। তার চিকিৎসা নেওয়ার এক বছর হয়ে গেছে, সে েএখন স্বাভাবিক জীবনযাপন করছে।

ন্যাচারোপ্যথি সেন্টার কোমড়, ঘাড় ও হাঁটুর ব্যথায় আকুপ্রেসার ও খাদ্য পথ্যের মাধ্যমে অর্ব্যথ চিকিৎসা করে থাকে, এখানে যে কোন জটিল ও কঠিন সমস্যাগুলো ঔষধ বিহীন প্রাকৃতিক পদ্ধতীতে সু চিকিৎসা দিয়ে থাকে যার কোন ধরণের র্পাশপ্রতিক্রিয়া নেই।

চিকিৎসা নেয়ার জন্য যোগাযোগ
iconন্যাচারোপ্যথি সেন্টার
83 নয়া পল্টন, ফ্লাট – বি 7, গাজীনীড়, জোনাকি সিনেমা হলের বিপরীতে মসজিদ গলি।
SA1শহীদ আহমেদ – 01715118889
IMG_5843আলমগীর আলম – 01611010011

 

SHARE

LEAVE A REPLY